দ্বিতীয় পাতা , হাজীগঞ্জ

হাজীগঞ্জ কাঁঠালী গ্রামে সম্পত্তির উপর নিষেধাজ্ঞা করায় স্বস্তি কয়েক পরিবার

person access_time 2 months ago access_time Total : 54 Views

এসএম মিরাজ মুন্সী, হাজীগঞ্জ ঃ হাজীগঞ্জ উপজেলা ১১ নং হাটিলা পশ্চিম ইউনিয়নের কাঁঠালি মৌজার বসতভিটা উপর নিষেধাজ্ঞা এনে সম্পত্তি রক্ষা করার চেষ্টা করছেন ভুক্তভোগীরা। এতে করে কাঁঠালী তপাদার বাড়ির কয়েক পরিবারের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। ওই সম্পত্তি কাঁঠালি তপাদার বাড়ীর ছয় শতাংশের ভিটাবাড়ি। গত ২৬ আগস্ট তপাদার বাড়ির হেদায়েতুল¬াহ তাপাদারের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ১৪৫ ধারা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছে। বিজ্ঞ আদালত নালিশি ভূমিতে অস্থায়ী স্থিতাবস্থাসহ শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল¬াহ আল মাহমুদ জামান। এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন রনি নিষেধাজ্ঞার পরিপত্র পেয়ে বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। উভয় পক্ষের শান্তি-শৃঙ্খলা জন্য সম্পত্তি অস্থায়ীভাবে স্থিতিশীল রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, সাবেক কাঁঠালী মৌজার সাবেক ২৫৯ ও ২০৪ এর অন্দরে ছয় শতাংশ সম্পত্তির মালিকানায় চারটি পরিবার। এরমধ্যে নজরুল ইসলাম বাচ্চু একাই ছয় শতাংশ দখল করার পাঁয়তারা করছে। সম্পত্তির দাবিদার বিলকিস বেগম ও মনোয়ারা বেগম বলেন, আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। অথচ সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন লিটন জোরপূর্বক নজরুল ইসলাম বাচ্চুকে নিয়ে সম্পত্তি দখল করতে চায়। বাড়ির লোকজনের সাথে কোন যোগাযোগ না করে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে সম্পত্তি দখলে যাওয়ার চেষ্টা করে তারা। হেদায়েতুল¬াহ তাপাদার বলেন, সম্পত্তির মালিকানা যারা রয়েছেন তারা পৃথকভাবে খাজনা পরিশোধ করে আসছে। সেখানে সবাই ইচ্ছেমতো গাছগাছালি রোপন করে দখলে রয়েছে। অথচ লিটন ও বাচ্চু গংরা জোরপূর্বক ভাবে রাতের আঁধারে সম্পত্তি দখলের যাওয়ার চেষ্টা করে। এই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন লিটন একের পর এক বাড়িতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে আসছে। জানতে চাইলে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন লিটন বলেন, নজরুল ইসলাম বাচ্চু পৈতৃকসূত্রে পৌনে ছয় শতাংশ সম্পত্তির মালিকানা রয়েছে। সেই একাই এ জায়গা ভরাট করেছে। বাড়ীতে এজমালী সম্পত্তি একটি পরিবার দখলে রয়েছে বলে তিনি অভিযোগ তোলেন।

content_copyCategorized under