প্রথম পাতা , শীর্ষ খবর , ব্রেকিং নিউজ , হাজীগঞ্জ

হাজীগঞ্জে ৪ মাস মাথায় শ্রাবণীর উপহার পাওয়া ঘরটি ঝুঁকিপূর্ণ

person access_time 7 months ago access_time Total : 342 Views

স্টাফ রিপোর্টার ঃ হাজীগঞ্জ উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান ও হাজীগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার গাফিলতি এবং ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক অনিয়মের কারনে কলেজ শিক্ষার্থী শ্রাবনীকে দেয়া উপহার বসতঘরটি মাত্র চার মাসের মাথায় এখন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। হাজীগঞ্জ উপজেলার বাকিলা ইউনিয়নের খলাপাড়া কলেজ শিক্ষার্থী শ্রাবণীকে উপহার হিসাবে হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর (অব:) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম ফেব্রুয়ারী মাসে একটি সেমি. পাকা ঘর উপহার দেন। কিন্তু প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানের চরম গাফিলতি ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক অনিয়মের কারনে বর্তমানে সেমিপাকা ঘরটি মারাত্মকভাবে ফাঁটল দিয়ে এখন বৃষ্টির পানিতে ঘর ভিজে যায়। বলা বাহুল্য ঘরে থাকা এখন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। নিরাপত্তাহীণতায় ভুগছে শ্রাবণী ও তাঁর পরিবার। বিষয়টি জেনে সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম শুক্রবার বিকালে বলেন, সেমিপাকা ঘরটি নির্মাণ কাজে যারা তদারকি করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে এই দায়ভার নিতে হবে।
এদিকে উপহার পাওয়া শ্রাবণী বলেন, রান্নাঘরটি পুরোদমে ফাঁটল ধরে চৌচির অবস্থা। ফ্লোরে ফ্লোরে ফাঁটল ধরেছে। বসতঘরের এবং উপরের টিনের ছিদ্র দিয়ে বৃষ্টির পানি পড়ছে। উপহার পাওয়া ঘরটিতে এখন মা বাবাকে নিয়ে থাকাটা ঝুঁকিপূর্ণ। যে কোনো মুহূর্তে বসতঘরের দেয়াল ভেঙ্গে পড়তে পারে বলেও শ্রাবণী আশঙ্কা করছেন।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান বলেন, শ্রাবণীর বসতঘরটি ফাটলের বিষয় আমার জানা ছিল না। সরেজমিনে গিয়ে দেখে দ্রুত মেরামতের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়–য়া বলেন, শ্রাবণীর বসতঘরটি নির্মাণ কাজের দায়িত্বে ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। তবে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

content_copyCategorized under