দ্বিতীয় পাতা , হাজীগঞ্জ

হাজীগঞ্জে ফেসবুকের মাধ্যমে বৃদ্ধা পেল হুইল চেয়ার

person access_time 3 weeks ago access_time Total : 18 Views

সুজন দাস ঃ ফেসবুকের মাধ্যমে অসহায় বৃদ্ধা পেল একটি হুইল চেয়ার। পঞ্চান্ন বছর বয়সী বৃদ্ধার নাম আমেরী বেগম। মঙ্গলবার সকালে তাকে হুইল চেয়ারটি প্রদান করেন কয়েকজন সাংবাদিক ও সুধীমহল। ওইসময় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মনিরুজ্জামান বাবলু, এসএম মিরাজ মুন্সী, কবির আহম্মেদ, ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান, শিক্ষক কামরুল ইসলাম ও স্থানীয় বাসিন্দা ফখরুল ইসলাম। বৃদ্ধা চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ ইয়াকুব আলী সর্দার বাড়ির বাসিন্দা। সংসারে দুই মেয়ে ছাড়া আর কেউ নাই। বড় মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। ছোট মেয়েসহ কুঁড়ে ঘরে কাটছে জীবনের শেষের দিনগুলো। প্রায় তিন বছর ধরে তিনি প্যারালাশেস রোগে আক্রান্ত। তার ওপর আবার ব্রেন স্ট্রোক। পাড়া পড়শীদের সহযোগিতায় চলে সংসার। আমেরী বেগম চোখের জল মুছতে মুছতে আবেগআপ্লুত হয়ে বলেন, ‘কতজনারে বলেছি, কেউ শুনলনা। এক্কান হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করে দিলো না। ওয়ার্ড কাউন্সিলরকেও বলেছিলাম। তিনিও চেস্টা করেন। তবুও হয়নি। হুইল চেয়াওে বসতে পেওে তোমাদেরকে দোয়া করি। আমি খুশি হইছি। ’জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তিন বছর ধরে আমিন মেমোরিয়াল স্কুলের পাশে বসে পথচারীদের কাছে সাহায্য চাই। দৈনিক ৬০/৭০ টাকা হয়। এই টাকায় সংসার আর ওষুধের খরচ মিটানোর চেষ্টা করি।’ গত ২৩ নভেম্বর সাংবাদিক এসএম মিরাজ মুন্সী তার ফেসবুকে এই বৃদ্ধাকে নিয়ে একটি মানবিক পোস্ট করেন। জানতে চাইলে সাংবাদিক এসএম মিরাজ মুন্সী বলেন, ‘আমি ভীষণ খুশি। এই বৃদ্ধাকে একটি হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করে দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। ফেসবুকে পোস্টটি দেয়ার পর দুই ব্যক্তি আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন হুইল চেয়ারটি ক্রয় করে দেয়ার জন্য। এই হুইল চেয়ার ক্রয়ভার বহন করেন একজন প্রবাসী ও একজন ব্যবসায়ী।’ শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘সত্যি একটি প্রশংসণীয় কাজ। যোগ্য ব্যক্তিকেই মানবিকভাবে সহযোগিতা করা হয়েছে। এই আমেরী বেগম আমাদের স্কুলের কর্ণারে তিন বছর ধরে স্কুল চলাকালীন সময় সাহায্য চেয়ে আসছেন।’

শেয়ার করুনঃ
content_copyCategorized under