প্রথম পাতা , শীর্ষ খবর , ব্রেকিং নিউজ , হাজীগঞ্জ

হাজীগঞ্জের সন্তান হয়ে চাঁদপুরের মানুষের জন্য কাজ করে যাবো–নূরজাহান বেগম মুক্তা এমপি

person access_time7 hours ago

চাঁদপুরস্থ হাজীগঞ্জ সমিতির সাধারণ সভা ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান গতকাল রাতে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের ২য় তলা এলিট চাইনিজ রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সমিতির সাবেক সভাপতি ও সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডঃ নূরজাহান বেগম মুক্তা। বক্তব্য রাখেন সমিতির সদস্য ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতি ও চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রোটাঃ আলহাজ¦ অ্যাডঃ ইকবাল-বিন-বাশার, বিশিষ্ট লেখক ও মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন।
চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমির মহাপরিচালক ও চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক রোটাঃ পিপি কাজী শাহাদাতের সভাপ্রধানে ও চাঁদপুর সরকারি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাবেক সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বাহারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দৈনিক আলোকিত চাঁদপুরের সম্পাদকমÐলীর সভাপতি সরদার আবুল বাসার। ডাঃ বিশ^নাথ পোদ্দার, আলহাজ¦ মমিন মিয়া গাজী, অধ্যক্ষ সামছুদ্দিন আহমেদ, ডাঃ মোজাম্মেল হক পাটওয়ারী, মাহমুদ আহমেদ মিঠু, অ্যাডঃ শহীদুল্লাহ পাটওয়ারী, অ্যাডঃ আব্দুর রহমানসহ হাজীগঞ্জ সমিতির প্রায় ৫৫জন সদস্য ও তাদের পরিবার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
চাঁদপুর মডেল থানা মসজিদের খতিব মাওঃ ইসমাইল হোসেনের পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এরপর সমিতির পক্ষ থেকে প্রধান অতিথি অ্যাডঃ নূরজাহান বেগম মুক্তা ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এদিন আনন্দঘন পরিবেশে আলোচনা, নতুন কমিটি গঠনে মতামত, র‌্যাফেল ড্র, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান এবং সবশেষে অ্যাপ্যায়নের মাধ্যমে সমাপ্ত হয় সমিতির সাধারণ সভা ও ঈদ পুনর্মিলনী-২০১৮। আলোচনায় উপস্থিত সবার সম্মতিতে চাঁদপুর সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বাহারকে সভাপতি ও সরদার আবুল বাসারকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করে চাঁদপুরস্থ হাজীগঞ্জ সমিতির নতুন কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটির নেতৃবৃন্দকে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সমিতির পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার জন্য সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অ্যাডঃ নূরজাহান বেগম মুক্তা বলেন, আমরা হাজীগঞ্জের মানুষ সব কাজে পারদর্শী। রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আছি আমরা। আমরা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সেক্টরে রয়েছি। আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে দেশ ও সমাজ উন্নয়নে অনেক কিছু করতে পারব। তিনি আরো বলেন, আমার সবচেয়ে বড় পরিচয় হাজীগঞ্জের সন্তান, এই পরিচয়ে গর্ববোধ করি। হাজীগঞ্জের মানুষের মণিকোঠায় থেকে আমি চাঁদপুরের মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চাই। পরস্পরের প্রতি সম্প্রীতির মনোভাব নিয়ে আমরা একে অপরের বিপদে-আপদে সবসময় পাশে থাকবো। তিনি বক্তব্যের শুরুতে আগস্ট মাস তথা আবেগ এবং শোকের মাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ শহীদ পরিবারের সবারের সকলের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

content_copyCategorized under