শেষ পাতা , শাহরাস্তি , ব্রেকিং নিউজ

শাহরাস্তিতে আজ শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী লোকজ মেলা

person access_time 1 month ago access_time Total : 121 Views

মোঃ মাসুদ রানা,শাহরাস্তি ঃ শাহরাস্তিতে আজ থেকে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী লোকজ মেলা। মঙ্গলবার উপজেলার বিশ্বের অদ্বিতীয় সীদ্ধ পীঠস্থান মেহারকালি বাড়িতে শ্যামাপুজা (দীপাবলী) উপলক্ষে এ মেলার আয়োজন। পূজা শেষে বাজার সংলগ্ন মাঠে এ মেলা মাস ব্যাপী চলবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,এ মেলা উপলক্ষে মেহের কালিবাড়ী সীদ্বপীঠ স্থান সাজ সাজ রবে সেজেছে।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই এলাকায় নিছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়। পুজা এলাকায় ৪টি গেইটে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। আগত ভক্তদের নিরাপত্তা রক্ষায় আইন শৃংঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। এদিকে প্রতি বছরের ন্যায় মেলা উপলক্ষে পৌর সদরে অবস্থিত মেহার পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ, সীদ্বপীঠ স্থানের আশে পাশে কানায় কানায় ভরে গেছে স্টলে। ধারনা করা হচ্ছে এবার প্রায় সহ¯্রাধিক দোকানপাট মেলায় এসেছে। এতে রয়েছে পূজার সন্দেশ, বাতাসা, কদমাসহ বিভিন্ন বাহারি সামগ্রী এবং শিশুদের নানান খেলনা, ফার্নিসার দোকান শোভা পায় মেলায়। এছাড়া নাগর দোলাসহ চিত্তবিনোদনের জন্য সকল প্রকার বিনোদন স্থান পায়। আয়োজকরা জানান, প্রায় সাড়ে ছয়শত বছরের ইতিহাস নিয়ে ঐতিহ্য বহন করে আসছে এই সীদ্ধপীঠস্থান। কথিত রয়েছে শ্রী সর্ব্বানন্দ ঠাকুর এই স্থানে জিনগাছের তলে বসে মা কালীর ধ্যান করে মায়ের দর্শন লাভ করেন। তিনি মায়ের দশটি রুপ দর্শনে সীদ্ধি লাভ করে ধন্য হন। অলৌকিকতা হিসেবে শুনা যায় তিনি তাঁর ভৃত্ত (চাকর)পূর্ণানন্দের শবদেহের (মৃতদেহ) উপর বসে সাধন করাবস্থায় মায়ের দৈব বাণী আসে, “তোর সীদ্ধি লাভ হয়েছে, এবার বর প্রার্থনা কর”। তখন সর্ব্বানন্দ নিজের জন্য কোন বর না চেয়ে মাকে বললো মাগো , আমি কোন বর চাই না, বরতো চাইবে পূর্ণানন্দ। তখন মা কালি পূর্ণানন্দের মৃতদেহের শরীরে উষ্ঠা (লাথি) মেরে বললো উঠ, নির্বংশিয়া। তাৎক্ষনিক ভৃত্ত পূর্ণানন্দ জীবিত হয়ে উঠেন। মা কালি সরাসরি অবস্থান করায় তাঁর নিদের্শ মতে এ স্থানে বিগ্রহ (মুর্তি) স্থাপন করা নিষিদ্ধ। তাই মুর্তি বিহীন ওই স্থানে কালের সাক্ষি হিসেবে জিন গাছ গুলো আজো দাঁড়িয়ে রয়েছে। শ্যামাপূজা ছাড়াও পৌষ সংক্রান্তি, পহেলা বৈশাখী মেলা ও দশমহাবিদ্যা পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। প্রতি মঙ্গল ও শনিবারসহ প্রতিদিনে দূরদুরান্ত হতে ভক্তরা তাদের মনঃষ্কামনা পুরনে মায়ের বাড়িতে পুজা,পাঠাবলি দিতে ছুটে আসেন।

শেয়ার করুনঃ
content_copyCategorized under