প্রথম পাতা , শীর্ষ খবর , ব্রেকিং নিউজ , মতলব দক্ষিণ

মতলব দক্ষিণে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীকারী শিক্ষককে আদালতে উঠানো যায়নি

person access_time 6 months ago access_time Total : 108 Views

স্টাফ রিপোর্টার ঃ মতলব দক্ষিণের স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীকারী শিক্ষক মাসুদ রানাকে গতকাল সোমবারও আদালতে উঠাতে পারেনি পুলিশ। কারন হিসাবে তারা জানায়, শিক্ষককে আদালতে উঠাতে হলে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের অনুমতি লাগবে। কিন্তু অনুমতি না পাওয়ায় তাকে আদালতে তোলা সম্ভব হয়নি। তবে দু’শিক্ষকের জিম্মায় তাকে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় এখনও উত্তেজনা বিরাজ করছে। ডিপিও’র অনুমতি কবে পাওয়া যাবে এবং এ জঘন্য অপরাধী শিক্ষককে আদালতে উঠানো হবে, এ নিয়ে সর্বত্র নানা প্রশ্নের জন্ম হয়েছে। এলাকাবাসী শিক্ষকের বিচার চায়। যত দ্রুত সম্ভব তা দেখতে চায়। উল্লেখ্য, মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়নের ১১০নং পদুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাসুদ রানা কর্তৃক তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর দায়ে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। গত ৮ সেপ্টেম্বর রবিবার অত্র বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে শ্লীলতাহানী করলে এ ঘটনাটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এলাকার উত্তেজিত জনতা শিক্ষক মাসুদ রানাকে আটক করে বেদম প্রহার করে। পরে মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশ মাসুদ রানাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী দাদী শেফালী বেগম বাদী হয়ে মতলব দক্ষিণ থানায় একটি মামলা দায়ের করে। এ মামলার প্রেক্ষিতে শিক্ষক মাসুদ রানাকে গত ৯ সেপ্টেম্বর দুই শিক্ষক প্রতিনিধির জিম্মায় দেওয়া হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মিজানুর রহমান জানান, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীর সাথে শিক্ষক মাসুদ রানার ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে এলাকার উত্তেজিত জনতা তাকে বেদম প্রহার করে। বর্তমানে তিনি দুই শিক্ষক প্রতিনিধির জিম্মায় রয়েছেন। উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার সেলিনা আক্তার জানান, আটক শিক্ষক মাসুদ রানাকে আমাদের দুই শিক্ষক প্রতিনিধির জিম্মায় মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশ প্রদান করেছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

content_copyCategorized under