ব্রেকিং নিউজ

মঙ্গলবার হাজীগঞ্জ দ্বাদশগ্রাম ইউপি নির্বাচন

person access_time 5 months ago access_time Total : 12 Views

স্টাফ রিপোর্টার ঃ আজ ১৫ মে হাজীগঞ্জ উপজেলার নবগঠিত দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। প্রথমবারের মতো এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রশাসন নির্বাচন গ্রহনে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতাকারী চার প্রার্থীর মধ্যে তিনজন আওয়ামী লীগের হওয়ায় সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছেন বিএনপির একমাত্র প্রার্থী। তবে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে শঙ্কায় আছেন সাধারণ ভোটাররা।
চেয়ারম্যান পদে বিএনপির আনোয়ারুল ইসলাম বাবুল ধানের শীষ, আওয়ামী লীগের খোরশেদ আলম বকাউল নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুর রব মিয়া ওরফে খোকন বিএসসি আনারস ও ওমর ফারুক ঘোড়া মার্কা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।
উপজেলা প্রশাসন ও নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের শেষ দিকে উপজেলার রাজারগাঁও, বাকিলা ও কালচোঁ উত্তর ইউনিয়ন থেকে ১২ টি গ্রাম নিয়ে দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন গঠিত হয়। ওই সময় রাজারগাঁও ও কালচোঁ উত্তর ইউনিয়নের দুই ব্যক্তি দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন গঠনে আপত্তি জানিয়ে হাইকোর্টে দুইটি রিট আবেদন করেন। চার বছর মামলা চলার পর গত বছরের শেষ দিকে রিট আবেদন দুইটি নিষ্পত্তি হয়। ৯ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষনা করে।
দলীয় সূত্র ও দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়নের ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থীর মধ্যে তিনজনই আওয়ামী লীগ সমর্থিত। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খোরশেদ আলম বকাউল ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, আবদুর রব মিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ও আওয়ামী লীগ কর্মী, ওমর ফারুকও আওয়ামী লীগের সমর্থক। আর বিএনপি প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক।
খোরশেদ আলম বলেন, দ্বাদশগ্রাম ইউপিতে নৌকার পক্ষে গনজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। মানুষ উন্নয়নের জন্য নৌকায় ভোট দিবেন। বিএনপির আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়নে বিএনপির ভোট বের্শী। সুষ্ঠ নির্বাচন হলে এবং জনগন ভোট দিতে পারলে ধানের শীষ মার্কার বিজয় সুনিশ্চিত।
সাধারণ ভোটারদের মধ্যে দশজন ভোটারের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিনিধির। ইছাপুরা গ্রামের বাসিন্দা ও মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুল আলম চুন্নু বলেন, চারজন প্রার্থীর মধ্যে যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতায় মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রব মিয়া সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। সাধারণ ভোটররা যোগ্য প্রার্থী হিসাবে তাঁকে বেছে নিবেন। তবে গত কয়েকদিন ধরে বাইরে থেকে নেতাকর্মীরা এলাকায় গিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করায় সাধারণ ভোটররা শঙ্কায় রয়েছেন। দেওদ্রোন গ্রামের জুলহাস হোসেন বলেন, তিন প্রার্থীর মধ্যে প্রতিদ্বন্দিতা হবে। সাধারণ মানুষ এখন মুখ খুলছেন না। http://www.banglaconverter.net/tools.php?f=Bijoy-To-Unicode
চেয়ারম্যান ছাড়াও সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ৩৩ ও সংরক্ষিত সদস্য পদে নয় জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। নির্বাচনে ৯ হাজার ৯১৬ জন ভোটার ভোট দিবেন।
রিটার্ণিং কর্মকর্তা নয়ন মনি সূত্রধর বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠ করার জন্য পাঁচজন ম্যাজিষ্ট্রেট ও পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। অনিয়ম হলেই তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুনঃ
content_copyCategorized under