প্রথম পাতা , ব্রেকিং নিউজ , মতলব দক্ষিণ

প্রধানমন্ত্রীর ১০হাজার প্যাকেট উপহার পাঠালেন সাবেক মন্ত্রী মায়া চৌধুরী

person access_time 2 weeks ago access_time Total : 23 Views

শামসুজ্জামান ডলার,মতলব উত্তর ঃ করোনার প্রাদুুর্ভাবে কর্মহীন, দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম ও তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দ্বিতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে ১০ হাজার প্যাকেট উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে মতলব উত্তর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে।
সোমবার সকালে ফরাজীকান্দি ও বাগানবাড়ী ইউনিয়নে বিতরন করা হয়। সোমবার সকালে ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের ছোটহলদিয়ায় ও ৯৭নং ফরাজীকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ৬’শতাধীক পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয় এবং বাগানবাড়ী ইউনিয়নে বিতরন করা হয় ৫শতাধিক প্যাকেট। ইতিমধ্যে মতলব উত্তরের ৬টি ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর উপহার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।
মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম ও তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে ফরাজীকান্দী ইউনিয়নে উপহার সামগ্রী বিতরণকার্য পরিচালনা করেন ফরাজীকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দানেশ ও মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য আহমেদ চৌধুরী।
উপহার সামগ্রী বিতরণ পূর্বে মুঠোফোনে সাবেক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম বলেছেন, দেশের দারিদ্র্যপীড়িত জনগোষ্ঠীর ভাগ্যের পরিবর্তন করাই আওয়ামী লীগের রাজনীতি। বাংলার প্রতিটি মানুষের আশ্রয়, শিক্ষা, চিকিৎসা, খাদ্য ও বস্ত্র নিশ্চিত করতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার কাজ করছে। কাজেই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় একটি দুস্থ পরিবারও অনাহারে থাকবে না, না খেয়ে থাকবে না। করোনা ভাইরাসের এই সংকটকালে বঙ্গববন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা স্থিতিশীল রাখার জন্য কৃষি, স্বাস্থ্য, রপ্তানী শিল্প ও গার্মেন্টস সহ বিভিন্ন সেক্টরে প্রণোদনা এবং অসহায় মানুষের মধ্যে খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রেখেছেন।
সাবেক মন্ত্রী মায়া বলেন, এ সংকট কালে ঢাকায় থাকলেও আমার মন পড়ে আছে প্রিয় চাঁদপুর-২ আসনের মানুষের মাঝে। লকডাউনের কারণে মতলবের মানুষের মাঝে উপস্থিত হতে না পেরে দুঃখ প্রকাশ করছি। তাই অভুক্ত যাতে না থাকতে হয়, সেজন্য আপনাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাঠালাম।
এ সময় উপজেলা যুবলীগের সদস্য মোশারফ হোসেন মন্টু, ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কবির হোসেন, জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আ. বাতেন প্রধান, উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য হেলাল উদ্দিন, ইউপি সদস্য নাছির হোসেন মুন্সি, ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি পলাশ দেওয়ান, আওয়ামীলীগে নেতা শফিকুল ইসলাম, সিরাজ হাওলাদার, নেতা এমএ হাশেম, শাহজাহান প্রধান, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক নোমান দেওয়ান, সদস্য তাহসিন আহমেদ, ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মোল্লা, শফিক, বিল্লাল হোসেন বুলেট, জনি, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ সভাপতি শাহাদাত হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ছদরুল আমিন’সহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

content_copyCategorized under