প্রথম পাতা , চাঁদপুর সদর , শীর্ষ খবর , ব্রেকিং নিউজ

পুরানবাজারে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহতের ঘটনায় ২৫৯জনের বিরুদ্ধে মামলা

person access_time 1 month ago access_time Total : 69 Views

স্টাফ রিপোর্টার ঃ চাঁদপুরের মাদক বিক্রি ও আধিপত্য বিস্তাররকে কেন্দ্র করে ওয়ার্ড যুবদলের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে শামিম গাজী (২৪) নামের এক নিরীহ পথচারী নিহত হবার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ১ জুলাই বুধবার দুপুরে শামীম গাজীর পিতা তাজুল ইসলাম গাজী বাদি হয়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা ২শ’ ৫৯ জনকে আসামী করে এই মামলা দায়ের করা হয়। যার মামলা নং ৪। তারিখ ০১/০৭/২০২০। এদের মধ্যে ১নং আসামী ১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহির খান এবং ২নং আসামী হলেন ২নং ওয়ার্ড যুবলীগের সমাজ কল্যান সম্পাদক রাসেল পাটওয়ারী। মামলার তদন্তের স্বার্থে বাকিদের নাম প্রকাশ করেনি। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২৯ জুন রাতে জেলার প্রধান বানিজ্যিক এলাকা পুরাণবাজারে মাদক বিক্রির টাকার ভাগবাটোয়ারা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কবরস্থান এলাকা এবং মেরকাটিজ রোড় এলাকার সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দুটি পক্ষের প্রায় ৩ ঘন্টাব্যাপী মুখোমুখি রক্ষক্ষয়ী সংঘর্ষে অসংখ্য ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান- বসতবাটি ভাংচুর করা হয়। এতে উভয় পক্ষের প্রায় ১৫ জন আহত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে চাঁদপুরের হোটেল গ্রান্ড হিলশায় রিসিপশনে চাকরি করা শামীম গাজী (২৪) বাসায় ফেরার পথে তাকে প্রতিপক্ষের লোক ভেবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। স্থানীয়রা আহত শামীম গাজীকে প্রথমে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার অবস্থা অশংখ্যাজনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সোমবার সকাল ৭টায় মারা যায় সে। নিহত শামিম গাজী পুরাণবাজার মধ্যশ্রীরামদি এলাকার তাজু সর্দারের সেজো ছেলে। দাম্পত্যজীবনে সে লামিম নামের ৯ মাসের এক পুত্র সন্তানের জনক। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মাদক বিক্রি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত ২৭ এপ্রিল পুরাণবাজার ১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহির এবং ২নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত পাটওয়ারীর গ্রুপের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে জহির গ্রুপের সবুজ খান (২৪) নামের এক যুবককে কুপিয়ে আহাত করা হয়। মূলত ওই ঘটনার রেশ ধরেই রোববার সন্ধ্যায় দুটি গ্রুপের দফায় দফায় মারামারি হয়। খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানা ও পুরাণবাজার ফাঁড়ির পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা চালায়। এসময় কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি করা হয়। নিহত শামিমের পিতা তাজুল সর্দার জানান, আমার ছেলে দুই বছর হলো বিয়ে করেছে। তার লামিম নামে ৯ মাসের একটা শিশুপুত্র রয়েছে। ওরা মারামারি করে আমার নিরীহ ছেলেটাকে মেরে ফেলেছে। আমি ছেলে হত্যার বিচার চাই।

content_copyCategorized under