শীর্ষ খবর , খেলার মাঠে , ব্রেকিং নিউজ , আন্তর্জাতিক , জাতীয়

নাইজেরিয়াকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনা

person access_time7 hours ago

ঠিক চার বছর আগে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে শেষ গোল করেছিলেন লিওনেল মেসি। এবারের বিশ্বকাপে সেই নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধেই গোলের খাতা খুললেন এ আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। সেন্ট পিটার্সবার্গে টিকে থাকার লড়াইয়ে মেসির দর্শনীয় গোলেই এগিয়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা।

ব্রাজিল বিশ্বকাপের গ্রুপ ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে জোড়া গোল করে দলকে জিতিয়েছিলেন মেসি। আর্জেন্টিনা ফাইনাল পর্যন্ত খেললেও মেসি আর গোলের দেখা পাননি। গ্রুপ পর্বে বসনিয়া ও ইরানের বিরুদ্ধে একটি করে গোল করেছিলেন মেসি।

দ্বিতীয় পর্বে অতিরিক্ত সময়ের গোলে হারিয়েছিল সুইজারল্যান্ডকে। গোল করেছিলেন ডি মারিয়া। কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার জয়ের নায়ক ছিলেন হিগুয়াইন। সেমিফাইনালে গোলশূন্য ম্যাচে আর্জেন্টিনা টাইব্রেকারে হারিয়েছিল নেদারল্যান্ডসকে। আর ফাইনালে জার্মানির কাছে ১-০ গোলে হারে মেসিরা।

বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে সবসময়ই ফেভারিট আর্জেন্টিনা। আগের ৪ সাক্ষাতের সব কয়টিতেই জিতেছে ম্যারাডোনার দেশ। সেন্ট পিটার্সবার্গের এ ম্যাচেও ফেভারিট হয়ে মাঠে নেমেছিল দুইবারের চ্যাম্পিয়নরা।

প্রথম দুই ম্যাচে আইসল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে মেসিদের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। প্রথম ম্যাচে এগিয়ে গিয়ে ড্র করে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় মেসিদের আর্জেন্টিনা। মেসির পারফরম্যান্সও হতাশ করেছে তার সমর্থকদের। এমনকি কোচ হোর্হে সাম্পাওলিও মেসির পারফরম্যান্সে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

মেসি এমন এক ম্যাচে জ্বলে উঠলেন, যে ম্যাচে আর্জেন্টিনার জয় ছাড়া কোনো বিকল্প ছিল না। গোল করেছেন, দুর্দান্ত কিছু পাস দিয়েছেন। মেসিই যে এ ম্যাচে আর্জেন্টিনার প্রাণভোমরা ছিলেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ক্লাব ফুটবলে দুর্দান্ত হলেও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে মেসি হয়ে যান নিজের ছায়া-এ অপবাদ তাকে নিয়মিতই শুনতে হয়।

গত বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে জোড়া করার ৬ ম্যাচ পর ফের প্রতিপক্ষের পোস্ট চিনলেন বার্সেলোনার এ সুপারস্টার। ১৪ মিনিটে বানেগার লম্বা পাস ধরে মেসি প্রথমে ঢুকে পড়লেন নাইজেরিয়ার বক্সে। শেষ ডিফেন্ডার কেনেথ অমেরোকে গতিতে পরাস্ত করে কোনাকুনি শটে করলেন গোল। এটি বিশ্বকাপে ৬৬২ মিনিট পর মেসির গোল।

প্রথমার্ধেই হিগুয়াইনকে দুর্দান্ত এক পাস দিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু হিগুয়াইন শট নেয়ার আগেই বাধা দেন নাইজেরিয়ান গোলরক্ষক। ৩২ মিনিটে ফ্রিকিক থেকে অল্পের জন্য গোল পাননি মেসি। ডি মারিয়া বল নিয়ে বক্সে ঢোকার আগেই তাকে ফেলে দেন নাইজেরিয়ার লিওন বলোগান। বক্সের মাথা থেকে মেসির নেয়া ফ্রিকিক ফিরে আসে দ্বিতীয় পোস্টে লেগে।

মেসি আর গোল পাননি। এমন কি তেমন সুযোগ তিনি তৈরি করতে পারেননি। তবে বিশ্বকাপে এ সুপারস্টারের গোলে ফেরা সুখবর আর্জেন্টিনার জন্য। নিজেরা জিতেছে, অন্য ম্যাচে আইসল্যান্ড ২-১ গোলে হেরেছে ক্রোয়েশিয়ার কাছে। সমীকরণ মিলিয়ে বিশ্বকাপের পরের রাউন্ডে উঠে গেছে ম্যারাডোনা-মেসির দেশ। ম্যাচের শেষ দিকে আর্জেন্টিনার জয়সূচক গোলটি করেন মার্কোস রোজো।

content_copyCategorized under